হ্যালো বন্ধুরা আমরা মূলত বন্ধু-বান্ধবের সাথে ংযুক্ত থাকার জন্য ফেসবুক ব্যবহার করি বিশ্বের 200 কোটি মানুষ যেন তাদের প্রিয়জনের সাথে নিরাপদে কানেকশন রাখতে পারে এবং তাদের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত গুলো েয়ার করতে পারে সেইজন্য  ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কঠোর ভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছে তাই আজ ফেসবুক তাদের সেফটি পলিসি রিসোর্ট এবং বিভিন্ন সংস্থার সাথে অংশীদারিত্বে কিভাবে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কে নিরাপদে রাখা যায় বা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের নিরাপদ রাখতে ব্যবহৃত হয় সেই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য শেয়ার করেছে ফেসবুক

গত কয়েক বছরে ফেসবুক তাদের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা নিয়ে এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করতে কাজ করা সদস্যদের পরিমাণ দিন দিন বাড়িয়ে দিচ্ছে ফেসবুকে  নিরাপত্তা এবং সুরক্ষা নিয়ে কাজ করা 35 হাজার সদস্যের মধ্যে প্রায় 15 হাজার কন্টাক্ট পর্যালোচনা এবং দেশের কাজে নিয়োজিত আছেন এমন সদস্য আছেন যারা বাংলায় লেখা কন্টাক্ট পর্যালোচনা করে

বন্ধুরা ফেসবুক তাদের টেন্ডারর্ডে কে  উল্লেখিত নীতিমালা নির্ধারণ করে ফেসবুক শেয়ার করা যাবে বা ফেসবুকে কি শেয়ার করা যাবে না এ বিষয়ে বিবেচনা তৈরি করা হয়েছে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এই নীতিমালায় আত্মহত্যা নিজেকে আঘাত করার প্রবণতা কাউকে উত্যক্ত করা অন্যের গোপনীয় লংঘন করা কাউকে যৌন হয়রানি করা ইত্যাদি ঘটনা গুলো যেন না ঘটে সে ব্যাপারে স্পষ্ট ভাবে বলা হয়েছে আর এই নীতিমালা গুলো ননিরাপত্তা তথ্যপ্রযুক্তি এবং মানবাধিকার বিশেষজ্ঞদের মতে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বিবেকের উপর নির্ভর করে নির্ধারণ করা হয়েছে আর এই নীতিমালা গুলো  বিশ্বের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য দরকারি ালা লংঘন করার কোনো সুযোগ নেই আর যদি কেউ নীতিমালা লংঘন করে আকাশের জন্য ফেসবুক বিভিন্ন তথ্য প্রযুক্তি এবং ওষুধের কাজ করতে সহায়তা করার জন্য বিনিয়োগ করে তাকে

প্রযুক্তির ব্যবহা কারিদের রিপোর্ট এবং রিভিউ খারিজের ফিডব্যাক এর উপর ভিত্তি করে ফেসবুক কনটেন্ট তাদের কমিউনিস্ট র যায় সেগুলো ্যালোচনা করে যদি কোনো নীতিমালা লংঘন করে তবে সেটি যাই হোক না কেন ফেসবুক থেকে সরিয়ে নেয়া হয় প্রতিষ্ঠানটির প্রতিটি রিপোর্ট কি মান গুরুত্ব দেয় একই পোস্ট বারবার গুরুত্বপূর্ণ নয় ফেসবুকের নীতিমালা লংঘন করে সেগুলো সরিয়ে ফেলতে বিগত কয়েক বছরে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে ফেসবুক  এ লেগে যাচ্ছে যার কারণে এসব প্রশ্নের জবাবে াবে শনাক্ত করে কেউ দেখার আগেই সেরে ফেলা সম্ভব হয় করতে চার যাবে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা ফেসবুকে কি শেয়ার বা পোস্ট করা যাবে এবং কি কি করা যাবে না সে সম্পর্কে সুস্পষ্ট নীতিমালা রয়েছে চোখের এমন কিছু টুলস রয়েছে যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা তাদের ফেসবুক হোম পেজ দেখতে চান এবং অন্য ব্যবহারকারীদের তাদের সম্পর্কে কতটুকু যেতে পারবেন বা ব্যবহারকারীর নিজে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন এবং পোস্টগুলো রিপোর্ট করতে পারবেন অন্যান্য সংস্থার সাথে অংশীদারিত্ব ফেসবুক বাংলাদেশ র সকল দেশের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ গবেষক এনজিও মানবাধিকার কর্মী এবং নিজেদের নির্দেশনা নিয়ে তাদের নীতিমালা প্রনয়নের পাশাপাশি রি করে দিয়েছে ফেসবুকের নিরাপত্তা বিষয়ক তাবিষয়ক প্রয়োজনীয় সবকিছু বিস্তারিত বলা আছে এবং বিষয়গুলোর ক্ষেত্রে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে আসল পরিচয় গোপন করে আপত্তিকর কর্মকাণ্ডে জড়িত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি তাই এমন ব্যবহারের বিরুদ্ধে ব্যবহার  নেওয়া হয়েছে ফেসবুকে 18 বছরের কম বয়সী অনেক ব্যবহার ারী রয়েছেন এবং ব্যবহারকারীরা সাংস্কৃতিকভাবে তাই প্রতিষ্ঠানটি ব্যবহারকারীদের নগ্নতা পণ্য অশালীন পোস্ট দেওয়া থেকে বিরত রাখে ব্যবহারকারীর  কাদের সাথে শেয়ার করবেন ারবেন কারা তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন নিরাপত্তা কোন একাউন্টে  সুরক্ষিত করুন আপনার উত্তরোত্তর নেতাদের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা নিজেরাই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারে

ওকে বন্ধুরা আজ এ পর্যন্তই ফেসবুকে কিভাবে নিরাপদে থাকা যায় এটা নিয়ে ছিল আজকে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা আজকের আলোচনা নিশ্চয়ই আপনাদের ভাল লেগেছে যদি ভালো লেগে থাকে আপনাদের বন্ধু-বান্ধবদের কেউ আজকের এই ক নিয়ে জানানো দরকার তাই আপনি শেয়ার করে দিন আপনার বন্ধু বান্ধব যেন নিরাপদ থাকতে পারে সে নিয়ে আলোচনা তাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *